সূচীপত্র

  আপনার পছন্দের pdf বই সংগ্রহ করতে, নীচে নামের উপর ☟ ক্লিক করুন।
তাওহীদঃ একত্ববাদ
পরকালঃ আখেরাত
জান্নাত জাহান্নাম
জানাযা ও কবর
সিরাতঃ রেসালাত
নামাজঃ সালাত
রোজাঃ সিয়াম
হজ্জ ও উমরাহ
যাকাতঃ অর্থনীতি
ইসলামী সমাজ
রাজনীতি ও রাষ্ট্র ব্যবস্থা
পারিবারিক জীবন
স্বাস্থ্য, পরিচর্যা
লেখকগণ 
আবদুর রহমান রাফাত পাশা
আবদুল মান্নান তালিব
আবদুস শহীদ নাসিম
আরিফ আজাদ
আবু আহমাদ সাইফুদ্দীন বেলাল
আবু তাহের মিছবাহ
আবু বকর মুহাম্মদ যাকারিয়া
আবু বকর সিরাজী
আবু সালীম মুহাম্মদ আবদুল হাই
আবুল আলা মওদুদী
আবুল আসাদ আবুল ফিদা হাফিজ ইবন কাসীর
আবুল হাসান আলী নাদভী
আবুল হোসেন ভট্টাচার্য
আব্দুর রাযযক বিন ইউসুফ
আব্দুল আযীয বিন আব্দুল্লাহ বিন বায
আব্দুল হামীদ ফাইযী আল মাদানী
আব্দুল্লাহ আযযাম
আব্দুল্লাহ শহীদ আব্দুর রহমান
আব্দুল্লাহ শাহেদ আল মাদানী
আব্বাস আলি খান
আলি হাসান তৈয়ব
আশরাফ আলী থানবী
আসাদ বিন হাফিয
আসেম ওমর
আহমদ আলি
আহমাদ আবদুল আলী তানতাভী
ইউসুফ আল কারযাভী
ইউসুফ ইসলাহি
ইকবাল কবীর মোহন
ইকবাল হোছেন মাছুম
ইবনে হিশা
ইমাম ইবনুল কাইয়্যিম
ইমাম ইবনে তাইমিয়্যাহ
ইমাম গাযযালী রহঃ
ইমাম বুখারী রহঃ 
এ. এন. এম. সিরাজুল ইসলাম
এ.কে.এম. নাজির আহমদ
এ.জেড. এম শামসুল আলম
এনায়তুল্লাহ আলতামাস
কাজী মুহাম্মদ ইব্রাহীম
কাসেম বিন আবুবকর
খন্দকার আবুল খায়ের
খন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর
খুররম জাহ মুরাদ
গোলাম আযম
গোলাম আহমাদ মোর্তজা
জাকির নায়েক
জাকেরুল্লাহ আবুল খায়ের
জালালুদ্দিন আবদুর রহমান সুয়ূতি
জহুরী
তারিক জামাল
দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী
নাসিম হেযাজী
নাসির হেলাল
ফায়সাল বিন আলি আল বাদানী
মতিউর রহমান নিজামী
মরিয়ম জামিলা
মাসুদা সুলতানা রুমী
মুজিবুর রহমান
মুযাফফার বিন মুহসিন
মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন
মুহাম্মদ আবদুল কাদের
মুহাম্মদ আবদুল মান্নান
◾মুহাম্মাদ আব্দুল মাবুদ
মুহাম্মাদ আব্দুল মালেক
মুহাম্মদ আব্দুর রহীম
মুহাম্মদ আব্দুল্লাহহেল কাফী
মুহাম্মদ আসাদুল্লাহ আল গালিব
মুহম্মদ ইকবাল
মুহাম্মদ ইকবাল কিলানী
মুহাম্মদ ইকবাল বিন ফাখরুল
মুহাম্মদ ওসমান গনি
মুহাম্মদ বিন ইবরাহিম আত তুআইজিরী
মুহাম্মদ কামারুজ্জামান
মুহাম্মাদ খলিলুর রহমান মুমিন
মুহাম্মদ তাকি উসমানী
মুহাম্মদ নাসেরুদ্দিন আল আলবানী
মুহাম্মদ বিন জামীল যাইনু
মুহাম্মদ বিন সালেহ আল উসাইমীন
মুহাম্মদ মতিয়ার রহমান
মুহাম্মদ রেজাউল করীম
মুহাম্মাদ শফী
মুহাম্মদ সালেহ আল মুনাজ্জিদ
মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ খান মাদানী
মোশারাফ হোসেন খান
মোস্তাফিজুর রহমান ইবনে আব্দুল আজিজ
শফীউদ্দীন সরদার
শাহ ওয়ালিউল্লাহ দেহলভী
শাহ মুহাম্মদ হাবীবুর রহমান
সাইয়েদ কুতুব শহীদ
সাঈদ ইবন আলি ইবন ওহাফ আল কাহতানী
সাদেক হুসাইন
সানাউল্লাহ নজির আহমদ
সালেহ ইবন ফাওযান
হারুন ইয়াহিয়া

আবার ভিজিট করবেন !!! ধন্যবাদ

৪৪টি মন্তব্য:

  1. প্রথমেই আল্লাহ কাছে আপনার জন্য উত্তম ফায়সালার আবেদন করছি।অত:পর আমার আকুল আবেদন উপরোক্ত আমেলগনের একটি একটি করে বই ডাউনলোড করা আমার পক্ষে কষ্ট হচ্ছে, সাথে সময়ও।তাই যদি প্রথমেই জিপ আকারে সব বই একত্রে দেয়া হতো তাহলে খুব খুশি হতাম।আশা করি,এর কোন না কোন প্রতিউত্তর পাবো

    উত্তর দিনমুছুন
  2. আমাদের একটু সময় দিন বিষয়টা নিয়ে ভাববার এবং সময় দিন কাজটি সম্পন্ন করার।

    উত্তর দিনমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. প্রায় ১১ মাস হয়ে গেল, কাজটি কি সম্পন্ন হয়েছে? সব গুলো বইয়ের জিপ ফাইল করে দিল অনেক উপকার হতো প্লিজ।

      মুছুন
  3. দুর্গম পথের যাত্রি বইটার ডাউনলোড লিংকটা কেউ দিবেন কী

    উত্তর দিনমুছুন
  4. আসসালামু আলাইকুম। প্রশংসার কোনো ভাষা আমার কাছে নেই। একাজের সাথে যুক্ত সম্মানিত সকলের জন্য রইল সার্বিক কল্যাণ কামনা এবং আল্লাহর দরবারে কবুলিয়ত এর আন্তরিক প্রার্থনা।আমিন।

    উত্তর দিনমুছুন
  5. আসসালামু আলাইকুম। প্রশংসার কোনো ভাষা আমার কাছে নেই। একাজের সাথে যুক্ত সম্মানিত সকলের জন্য রইল সার্বিক কল্যাণ কামনা এবং আল্লাহর দরবারে কবুলিয়ত এর আন্তরিক প্রার্থনা।আমিন।

    উত্তর দিনমুছুন
  6. আসসালামু আলাইকুম। প্রশংসার কোনো ভাষা আমার কাছে নেই। একাজের সাথে যুক্ত সম্মানিত সকলের জন্য রইল সার্বিক কল্যাণ কামনা এবং আল্লাহর দরবারে কবুলিয়ত এর আন্তরিক প্রার্থনা।আমিন।

    উত্তর দিনমুছুন
  7. আলহামদুলিল্লাহ।
    আল্লাহ আপনাদেরকে এর জন্য উত্তম প্রতিদান দান করুক

    উত্তর দিনমুছুন

  8. আলহামদুলিল্লাহ।
    আল্লাহ আপনাদেরকে এর জন্য উত্তম প্রতিদান দান করুক।

    উত্তর দিনমুছুন
  9. আসসালামু আলাইকুম। প্রশংসার কোনো ভাষা আমার কাছে নেই। একাজের সাথে যুক্ত সম্মানিত সকলের জন্য রইল সার্বিক কল্যাণ কামনা এবং আল্লাহর দরবারে কবুলিয়ত এর আন্তরিক প্রার্থনা।আমিন।

    উত্তর দিনমুছুন
  10. আসসালামু আলাইকুম। প্রশংসার কোনো ভাষা আমার কাছে নেই। একাজের সাথে যুক্ত সম্মানিত সকলের জন্য রইল সার্বিক কল্যাণ কামনা এবং আল্লাহর দরবারে কবুলিয়ত এর আন্তরিক প্রার্থনা।আমিন।

    উত্তর দিনমুছুন
  11. আসসালামু আলাইকুম। প্রশংসার কোনো ভাষা আমার কাছে নেই। একাজের সাথে যুক্ত সম্মানিত সকলের জন্য রইল সার্বিক কল্যাণ কামনা এবং আল্লাহর দরবারে কবুলিয়ত এর আন্তরিক প্রার্থনা।আমিন।

    উত্তর দিনমুছুন
  12. আসসালামু আলাইকুম। প্রশংসার কোনো ভাষা আমার কাছে নেই। একাজের সাথে যুক্ত সম্মানিত সকলের জন্য রইল সার্বিক কল্যাণ কামনা এবং আল্লাহর দরবারে কবুলিয়ত এর আন্তরিক প্রার্থনা।আমিন।

    উত্তর দিনমুছুন
  13. অলাইকুম আসসালাম, শুভেচ্ছা ও আন্তরিক মোবারকবাদ। আমাদের আপলোডকৃত বই ডাউনলোড করুন পড়ুন আর বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন, ধন্যবাদ

    উত্তর দিনমুছুন
  14. অতিব ধন্যবাদ। আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া এর PDF ফাইল এড করতে পারলে খুব ভালো হত।

    উত্তর দিনমুছুন
  15. ভ্রান্ত, কথিত আহলে হাদীসদের জাল গ্রন্থ এই সাইটে বিদ্যমান।
    সাধারণ মানুষ ধোঁকা খাবে।

    উত্তর দিনমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আমাদের ব্লোগটি একটি অনলাইন পিডিএফ লাইব্রারি মাত্র, তাই এখানে সব ধরনের মত ও ভাবনার বই বিদ্যমান। আপনি আপনার পছন্দের বই গুলির ডাউনলোড করুন, আর যেগুলি পছন্দ হয় না সেগুলি ছাড়ুন

      মুছুন
    2. ভাই সহীহ ইবনু খুযাইমা কিতাবটা নেই দয়া করে যোগ করুন

      মুছুন
    3. তোর মতো লোকের এই ব্লোগে আসার দরকার নাই তুই অন্য সাইটে যা...

      মুছুন
  16. জিহাদ কুরআন ও হাদিসের একটি বিশেষ পরিভাষা। তাঁর অর্থ হল দ্বীন ইসলামের প্রতিরক্ষা ও সমুন্নত করার লক্ষ্যে ইসলামের শত্রুদের বিরুদ্ধে অস্ত্র দিয়ে লড়াই করা।
    জিহাদের সমস্ত ফজিলত দাওয়াত ও তাবলীগের কাজের সাথে প্রয়োগ করা في سبيل الله جهاد (জিহাদ ফি সাবিলিল্লাহ) কে তাবলীগের সাথে ‘খাস’ করা বা في سبيل الله (ফি সাবিলিল্লাহ) কে ‘আম’ করে তাবলীগকেও এর উদ্দেশ্য বানানো সম্পূর্ণ ভ্রান্ত ও ভিত্তিহীন দাবি ছাড়া আর কিছুই নয়। এ কথাগুলো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সর্বদা স্মরণ রাখা জরুরী।
    মোট কথা এই في سبيل الله (ফি সাবিলিল্লাহ) পরিভাষাটি কুরআন ও হাদীসে ‘আম’ (ব্যাপক) না ‘খাস’ (বিশেষ) এ ব্যাপারে মতানৈক্য আছে। তবে আলোচনা পর্যালোচনার পরে মাসরাফে যাকাতের (যাকাতের ব্যয়ের খাত) আলোচনায় এই কথাই সিদ্ধান্ত হয়েছে যে في سبيل الله (ফি সাবিলিল্লাহ) একটি বিশেষ পরিভাষা অর্থাৎ ‘খাস’ এবং সকল মুহাদ্দিসীনের কর্ম পদ্ধতিও এটাই ছিল (অর্থাৎ সকল মুহাদ্দিসীন ফি সাবিলিল্লাহকে কে বিশেষ পরিভাষা হিসেবে ব্যবহার করেছেন)।
    তারা সকলেই في سبيل الله (ফি সাবিলিল্লাহ) শব্দ সম্বলিত সকল হাদীসকে কিতাবুল জিহাদ অর্থাৎ জিহাদ অধ্যায়ে উল্লেখ করেছেন। তার মানে তাদের নিকটও এটা বিশেষ পরিভাষা এবং এর সাথে সম্পৃক্ত ফযিলতসমূহ একটি বিশেষ কাজের জন্য নির্ধারিত।
    কিন্তু তাবলীগ জামাতের ভাইয়েরা في سبيل الله (ফি সাবিলিল্লাহ) সংক্রান্ত হাদীসগুলোকে ‘আম’ করে ফেলেছেন। বরং তারা নিজেদের কাজকেই ঐ সকল হাদীসের مصداق বা প্রয়োগ ক্ষেত্র সাব্যস্ত করেছেন।
    তারা মেশকাতুল মাসাবীহ হাদীসের কিতাব থেকে তাবলীগী কাজের জণ্য যে মুস্তাখাব নির্বাচিত সংকলন রচনা করেছেন, তাতে জিহাদের অধ্যায় পুরোটাই শামিল করেছেন।
    এর দ্বারা স্পষ্ট উদ্দেশ্য এটাই যে , তাদের কাজও একটি জিহাদ। এ বিষয়ে মাওলানা ওমর পালনপুরী রহঃ এর সাথে অধমের আলোচনা ও চিঠি আদান প্রদান হয়েছে।
    হযরতের মনোভাব এমন ছিল যে, আমাদের তাবলীগী কাজও জিহাদ।
    তিনি এক চিঠিতে দলিল হিসাবে এ কথা আমাকে লিখেছেন যে, তিরমিযি শরীফের একটি রেওয়ায়েতে তাবেঈ উবায়াহ্‌ রহঃ মসজিদে যাওয়াকে في سبيل الله (ফি সাবিলিল্লাহ) এর প্রয়োগ ক্ষেত্রে সাব্যস্ত করেছেন। তাহলে দাওয়াত ও তাবলীগের কাজে কেন তা প্রয়োগ করা যাবে না? আমি উত্তরে লিখেছি যে —
    প্রথমতঃ
    উবায়াহ্‌ রহঃ কোন সাহাবী নন। হানফী আলেমদের নিকট সাহাবীদের কথা حخت বা দলিল। কিন্তু তাবেঈদের ব্যাপারে স্বয়ং ইমাম আবু হানীফা রহঃ এর কথা হল هم رخال ونحن رخل — তারাও মানুষ আমরাও মানুষ।
    অর্থাৎ তাঁদের কথা আমাদের হানফী আলেমদের নিকট حخت বা স্বতন্ত্র দলিল নয়। যদি কোন সাহাবী এই পরিভাষাটি “আম” (ব্যাপক) করতেন তাহলে একটা কথা ছিল।
    দ্বিতীয়তঃ
    একমাত্র দাওয়াত ও তাবলীগই কেন এর প্রয়োগ ক্ষেত্র হবে? যদিও কোন কোন ভাইকে বলতে শুনা যায় — তাবলীগই দ্বীনি কাজ। হযরত ইলিয়াস রহঃ এমন বলতেন না। যদিও তিনি বলতেন তাবলীগও দ্বীনি কাজ। কিন্তু তাবলীগ জামাতের ভায়েরা “ও” কে “ই” দ্বারা পাল্টে দিয়েছেন।
    মোটকথা, তারা নিজেদের কাজকেই জিহাদ বলেন। বরং তারা হয়তো হাকীকী জিহাদকেও জিহাদ মনে করেন না। তাঁদের মতে জিহাদের ফজিলতগুলোও দাওয়াত ও তাবলীগের মাঝে সীমাবদ্ধ।

    উত্তর দিনমুছুন
  17. তৃতীয়তঃ
    অন্য সকল দ্বীনি কাজ সম্পাদনকারীরা যেমন দ্বীনি শিক্ষাদান ও লেখালেখীতে ব্যস্ত আলেমরা নিজেদের কাজের জন্য في سبيل الله (ফি সাবিলিল্লাহ) ও জিহাদের ফজিলত সাব্যস্ত করেন না। এরপরেও কেন তাবলীগের ভাইরা এসকল হাদীসগুলোকে তাদের কাজের ক্ষেত্রে ব্যবহার করেন?
    এই চিঠির পর মাওলানা ওমর পালনপুরী সাহেবের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে আর কোন চিঠি আসেনি। কোন এক চিঠিতে শ্রদ্ধেয় মাওলানা সাহেব একটি যুক্তি পেশ করেছিলেন যে, জিহাদ হল حسن لغيره অর্থাৎ সত্ত্বাগতভাবে ভালো নয় অন্য কারনে ভালো।
    বাহ্যিক দৃষ্টিতে জিহাদ হল জমীনে ফাসাদ সৃষ্টি করা। আর দাওয়াত তাবলীগ স্বয়ং حسن لذاته حسن (সত্ত্বাগত ভালো) এটা হল আল্লাহ তা’আলা ও সৎকাজের প্রতি দাওয়াত। সুতরাং যে সব ফজিলত ও সওয়াব حسن لغيره এর জন্যে তা حسن لذاته حسن এর জন্যে কেন হবে না?
    আমি উত্তরে আরজ করলাম এভাবে ক্বিয়াস (যুক্তি) দ্বারা সওয়াব সাব্যস্ত করা গ্রহণযোগ্য নয়। কেননা ক্বিয়াসটা শরঈ আহকামের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য, সওয়াব বা ফাজায়েল এবং এ জাতীয় অন্যান্য توقيفي বিষয়ে ক্বিয়াস চলে না।
    (তাওক্বীফী বলা হয় এমন বিষয়কে যার বাস্তবতা বান্দার বিবেক দ্বারা নিরূপণ করা যায় না। যেমন কোন সূরা পাঠে কি সওয়াব, কোন আমলে কি সওয়াব ও কোন আমলে কত গুনাহ এক্ষেত্রে আকল ব্যবহার করে কোন সিদ্ধান্তে পৌঁছার অধিকার শরীয়ত কাউকে দেয়নি। বরং কুরআন ও হাদীসে যতটুকু বলা হয়েছে তা সেভাবেই বহাল রাখতে হবে )
    অর্থাৎ এসকম স্পষ্ট বিষয়ে কুরআন হাদীসের প্রমান আবশ্যক। তাছাড়া সওয়াবের কম বেশী কষ্টের অনুপাতে হয়ে থাকে। (যেমন হাদীসে দূর থেকে মসজিদে আগমনকারীর সওয়াবের কথা বলা হয়েছে) আর আল্লাহই ভালো জানেন, কোন কাজে কি পরিমাণ কষ্ট ও এর সওয়াব কি হবে। দুনিয়ার মানুষ এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না।
    স্পষ্ট কথা হল, কষ্টের বিবেচনায় পারিভাষিক في سبيل الله جهاد (জিহাদ ফি সাবিলিল্লাহ) এর ধারে কাছেও তাবলীগী কাজ পৌছাতে পারবে না।
    এরপরও কিভাবে জিহাদের সওয়াব ও ফজিলত ঐ কাজের জন্য প্রযোজ্য হতে পারে। আজ পর্যন্ত মুহাক্কিক আলেমদের কেউই এ সকল বর্ণনাকে অন্য কোন দ্বীনি কাজে ব্যবহার করেন নি।
    ফায়দাঃ
    উপরোক্ত আলোচনায় “ও” এবং “ই” এর কথা হয়েছে (“তাবলীগও দ্বীনি কাজ”/ “তাবলীগই দ্বীনি কাজ” )। এটা একটা উদাহরণ দ্বারা ভালোভাবে বোঝা যায়। হিন্দুস্তানের একটি বড় হীরক খন্ড, কোহিনুর। এটা অত্যন্ত মূল্যবান হীরা। যদি তা হাত থেকে পড়ে ছোট বড় পাঁচ টুকরা হয়ে যায় তাহলেও এ টুকরাগুলো মুল্যহীন হবে না। প্রতিটি টুকরার কিছু না কিছু মূল্য থাকবেই।
    কিন্তু কোন টুকরার এ অধিকার নেই যে সে বলবে, “আমিই ঐ কোহিনুর”। হ্যাঁ, প্রতিটি টুকরা এই কথা বলতে পারবে যে, “আমিও কোহিনুর” মানে কোহিনুরের একটি অংশ।
    উক্ত উদাহরণ দ্বারা একথা স্পষ্ট হয় যে, নবী সাঃ এবং সাহাবায়ে কেরাম রাযিঃ এর সকল কাজ একটি পূর্ণ কোহিনুর ছিল। তাঁরা একই সাথে দাঈ, মুবাল্লিগ, মুফাসসির, মুহাদ্দিস, ফকিহ, মুজাহিদ ছিলেন এবং তাঁরা রাজ্যও চালাতেন।
    কিন্তু পরবর্তীতে এই সব কাজ পৃথক পৃথক হয়ে গেছে। সুতরাং যে কোন দ্বীনি কাজকারীরা এ কথা বলতে পারেন যে, আমিও সাহাবী ওয়ালা কাজ করি। কিন্তু কারোরই একথ আবলার অধিকার নেই যে, সে বলবে, আমিই একমাত্র সাহাবী ওয়ালা কাজ করি।
    আল্লাহ তা’আলা আমাদের সকলকে এ বিষয়টি বোঝার তাউফীক দান করুন এবং যে সব ভুল-ত্রুটি হচ্ছে তার সংশোধন করুন। আমীন।
    মুফতী সাইদ আহমাদ পালনপুরী (হাফিযাহুল্লাহ)
    শাইখুল হাদীস ও মুফতী দারুল উলুম দেওবন্দ
    -সূত্রঃ তোহফাতুল আলমায়ী।

    উত্তর দিনমুছুন
  18. খুবই ভালো লাগলো। অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন ও মূল্যবান সংগ্রহ। সংশ্লিষ্ট সকলকে আল্লাহ কবুল করুন। আমীন।
    উত্তর

    উত্তর দিনমুছুন
  19. আল্লাহ আপনাদের সবাইকে উত্তম জাযা দান করুক
    জাযাকুমুল্লাহ খাইর

    উত্তর দিনমুছুন
  20. বিজ্ঞান বিষয়ক বইয়ের ভাণ্ডার বাড়ানো উচিত।

    উত্তর দিনমুছুন
  21. আল্লাহ্ আপনাদের প্রচেষ্টা কবুল করুন ।

    উত্তর দিনমুছুন
  22. মহান আল্লাহ আমাদের সকল কে কবুল করুন

    উত্তর দিনমুছুন
  23. প্রথমেই আল্লাহ কাছে আপনার জন্য উত্তম ফায়সালার আবেদন করছি।অত:পর আমার আকুল আবেদন উপরোক্ত আমেলগনের একটি একটি করে বই ডাউনলোড করা আমার পক্ষে কষ্ট হচ্ছে, সাথে সময়ও।তাই যদি প্রথমেই জিপ আকারে সব বই একত্রে দেয়া হতো তাহলে খুব খুশি হতাম।আশা করি,এর কোন না কোন প্রতিউত্তর পাবো

    উত্তর দিনমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. ভাইজান আমরা সমস্ত লেখকদের বই গুলো জিপ ফাইল আকারে আপলোড দিয়েছি তাই ডাউনলোড করুন পড়ুন এবং বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন ধন্যবাদ।

      মুছুন
  24. সংক্ষিপ্ত সময়ে ইসলামের উপর মৌলিক ধারণা অর্জনে সহায়ক একটি নতুন ব্লগ।

    https://go-jannat.blogspot.com/

    উত্তর দিনমুছুন
  25. খুশূ খুযূ ---- বইটি এড করার জন্য অনুরোধ করছি।

    উত্তর দিনমুছুন
  26. আল্লাহ আপনাদের প্রয়াস অব্যাহত রাখুন
    জাজাকাল্লাহখাইরান

    উত্তর দিনমুছুন
  27. আল্লাহ আপনাদের উত্তম প্রতিদান দান করবেন।ইনশাআল্লাহ

    উত্তর দিনমুছুন
  28. বই ডাউনলোড করে পড়লে কি গুনাহ হবে? মানে, লেখক/প্রকাশক এর হক নষ্ঠ করা হবে কিনা? এখানকার বইগুলো কি উনারা উন্মুক্ত করে দিয়েছেন? সেটা না জেনে পড়াটা সেফ মনে করতে পারছিনা। গুনাহ হলে পাঠক ও সাইটের পরিচালক সবাই গুনাহগার হবে। এডমিন কে অনুরোধ করবো বিষয়টা খোলাসা করার। জাঝাকুমুল্লাহ।

    উত্তর দিনমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আমাদের ব্লগের আপলোডকৃত দুই হাজারের অধিক পিডিএফ বই এর একটিও কপি আমারা স্ক্যান করি নাই। পাঠকের সুবিধার্থে বিভিন্ন সাইট থেকে বইগুলি সংগ্রহ করে আমরা একটি তালিকাবদ্ধ রূপ দিয়েছি মাত্র।
      যদি গুনাহের কারণ মনে করেন তাহলে, আপনি আপনার পরিচিত শায়েখ সাথে শলাপরামর্শ করুন। তার সিদ্ধান্ত আপনি গ্রহণ করুন আর আমাদেরটা আমাদেরই উপর ছেড়ে দিন।

      মুছুন

বর্ণ অনুসারে